Porjotonlipi

সুদিন আসুক সূর্যমুখীর সঙ্গে

প্রকৃতি সবসময়ই তার রূপ দিয়ে বিমোহিত করে দেয়, যেমনটা দেখেছি ফেনীর সূর্যমূখী বাগানে। প্রাকৃতিক গাছপালা, প্রাকৃতিক ফল সবকিছুর প্রতিই আমাদের আলাদা টান। ঠিক তেমনি আমাদেরও উচিত প্রকৃতির খেয়াল রাখা, প্রকৃতিকে তার রূপ প্রকাশে সাহায্য করে। বর্তমানে সূর্যমুখী ফুলের প্রতি আমাদের সকলেরই আলাদা একটি টান সৃষ্টি হয়েছে। দেশের প্রায় অনেক জায়গাতে সরকারি ভাবে কিংবা নিজস্ব অর্থায়নে সূর্যমুখীর চাষ হচ্ছে।

সূর্যমুখীর হাসি

 

কিছুদিন আগে গ্রামের বাড়ি গিয়ে দেখি প্রত্যন্ত চরাঞ্চলে প্রায় প্রতিটি জমিতেই সূর্যমুখী চাষ হচ্ছে। স্থানীয় কৃষকদের সাথে কথা বলে জানতে পারি, সরকারি ভাবে তাদেরকে সূর্যমুখীর বীজ এবং সার দেওয়া হয়। এরপর তারা তাদের জমিতে সূর্যমুখীর চাষ শুরু করেন। উৎপন্ন সূর্যমুখী ফুল সরকারকে হস্তান্তর করে সরকার থেকে তেল নেওয়ার মাধ্যমে তারা তাদের জমি কাজে লাগাচ্ছেন। স্থানীয়ভাবে ব্যাপক পর্যটক আসেন এসব জায়গা ঘুরতে। আমরা যখন যাই তখনও সেখানে ব্যাপক মানুষের সমাগম ছিল।

যেভাবে যাবেন ফেনীর সূর্যমূখীফেনীর সূর্যমূখী বাগান

ফেনীর সূর্যমূখী বাগানে যেতে হলে আপনাকে যেকোনো প্রান্ত থেকে আপনাকে আগে আসতে হবে ফেনীর দাগূনভুইয়া কিংবা নোয়াখালীর চৌধুরীহাট, জনতাবাজার নামক জায়গায়। এরপর সেখান থেকে সূর্যমুখী বাগান বললে যে কেউই দেখিয়ে দিবে কিংবা আপনি গাড়ি করে যাওয়ার সময়ই দেখতে পাবেন রাস্তার দু’পাশেই সারি সারি সূর্যমুখীর বাগান।

নির্দেশনাঃ অবশ্যই স্বাস্থ্যবিধি মেনে সেখানে যাবেন এবং সতর্কতা অবলম্বন করে চলবেন। ফুল এবং বাগানের কোনো ক্ষতি যেনো না হয় আপনার দ্বারা।

কন্টেন্ট রাইটারঃ শাহীন সুলতানা

-করোনার প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় সকল ভ্রমণ কেন্দ্রগুলো বন্ধ রয়েছে। এই মহামারীর সময়ে অপ্রয়োজনীয় ভ্রমণ থেকে বিরত থাকুন, নিরাপদে থাকুন।  

Porjotonlipi

Add comment