Porjotonlipi

সুনামগঞ্জের শিমুল বাগান

পর্যটনলিপি বাংলাদেশকে তথা বাংলাদেশের দর্শনীয় স্থানগুলোকে এদেশের ভ্রমণপিপাসুদের কাছে পৌঁছে দিতে প্রতিনিয়ত কাজ করে যাচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় আজকে আমরা জানব সুনামগঞ্জের একটি অনন্য সুন্দর জায়গার কথা, যার নাম শিমুল বাগান।

অভূতপুর্ব শিমুল বাগান

অবস্থান

বাংলাদেশের সবথেকে বড় এই শিমুল বাগান সুনামগঞ্জ জেলার তাহিরপুরে অবস্থিত। স্পষ্টভাবে বলতে গেলে, তাহিরপুর উপজেলার উত্তর বাদাঘাট ইউনিয়নের মানিগাও গ্রামে রয়েছে এই বিখ্যাত শিমুল বাগান।

কিভাবে শুরু এই শিমুল বাগান

জয়নুল আবেদীন এর শিমুল বাগান, এই নামেই পরিচিত এই উদ্যোক্তা। তাহিরপুর উপজেলার উত্তর বাদাঘাট ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান এই জয়নুল আবেদীন, তিনি প্রায় ১০০ বিঘা জমিতে ৩০০০ টি শিমুল গাছ রোপণ করেন আজ থেকে প্রায় ১৪ বছর আগে। কালের বিবর্তনে এটিই আজ দেশের সবচেয়ে বড় শিমুল বাগান।

কবে যাবেন

শিমুল বাগান আসার সবচেয়ে উত্তম সময় হলো বসন্তের প্রথম প্রহর বা ফাল্গুন মাস। এই বাগানের অফুরন্ত সৌন্দর্যের সবটুকু আপনি এই সময়েই মুগ্ধতার সাথে উপভোগ করতে পারবেন।

কিভাবে  যাবেন

সুনামগঞ্জ শহর থেকে বেশ কয়েকটি উপায় আপনি যেতে পারবেন এই জয়নুল আবেদীন এর শিমুল বাগানে, যেকোনো উপায়েই প্রায় দুই ঘণ্টার মতো সময় লাগবে। সর্বপ্রথম, মাইক্রোবাস অথবা প্রাইভেট কার ভাড়া করে যেতে পারেন যাদুকাটা নদীর তীর পর্যন্ত। এছাড়াও, সুরমা ব্রিজ এর কাছ থেকে ভাড়ার মোটর সাইকেল অথবা সিএনজি দুটোই পাবেন। মোটর সাইকেলে দিতে হবে  ২৫০ টাকা থেকে ৩০০ টাকা। আর, সিএনজি করে যেতে হলে দিতে হবে  ১২০০ টাকা থেকে ১৫০০ টাকা । এক সিএনজি করে সর্বোচ্চ ৪ থেকে ৫ জন যাওয়া যায়। এরপর, আসে জাদুকাটা নদীর ঘাট। এখানে, নদী পারাপার করার জন্য চলে বোট, বোট ভাড়া জনপ্রতি ২০ টাকা। এরপর ঘাট থেকে শিমুল বাগান পর্যন্ত যাওয়ার জন্য একমাত্র বাহন হলো মোটর সাইকেল।  মোটর সাইকেলে করে ঘাট থেকে শিমুল বাগান পর্যন্ত যেতে জনপ্রতি গুনতে হবে ৩০ থেকে ৫০ টাকা, এইতো, পৌঁছে যাবেন শিমুল বাগানে।

সৌন্দর্য

সৌন্দর্য এমন একটি শব্দ যা নিতান্তই আপেক্ষিক। কিন্তু আপনি মানতে বাধ্য হবেন যে, জয়নুল আবেদীন সাহেবের শিমুল বাগান যেন  শিল্পীর তুলিতে আঁকা এক অনন্য পৃথিবী। শিমুল গাছের ফাঁকে ফাঁকে এই বাগানে রয়েছে অনেকগুলো লেবু গাছ। উল্লেখ্য যে, এখানে পর্যটকদের সুবিধার জন্য রয়েছে খাবার পানি।

ভ্রমণ শুধু মনকে ভালো করার জন্য বা ক্লান্তি দূর করার জন্যই নয় নিজেকে জ্ঞানের আলোকে সমৃদ্ধ করার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম। আমরা যে কোনো বাংলাদেশি নাগরিক কে অনুরোধ করব এই শিমুল বাগানকে ঘুরে দেখার জন্য, তবে অবশ্যই আপনার দ্বারা সেখানকার প্রকৃতি ও পরিবেশ যেন কোনভাবেই ক্ষতিগ্রস্থ না হয়। আর অবশ্যই পর্যটনলিপির সাথে থাকুন।

কন্টেন্ট রাইটারঃ নূর ফাতিহা তাহিয়াত 

Porjotonlipi

Add comment