Porjotonlipi

সাজেক ভ্যালী

পর্যটনলিপির বন্ধুরা ভাল আছেন তো সবাই! আমরা প্রতিনিয়ত অপার সৌন্দর্যের সাঁজে সজ্জিত বাংলাদেশকে আপনাদের সামনে তুলে ধরার চেষ্টা করে যাচ্ছি। আজ আমরা আপনাদের সামনে তুলে ধরব এক নৈসর্গিক সৌন্দর্যের স্থান ‘সাজেক ভ্যালী’। এই সাজেক ভ্রমন হয়তোবা হতে পারে আপনার স্মরনীয় ভ্রমণগুলোর একটি। সাজেক রাঙামাটি জেলার বাঘাইছড়ি উপজেলায় অবস্থিত । সাজেক হলো বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় ইউনিয়ন । যার আয়তন ৭০২ বর্গমাইল । সাজেকের উত্তরে ভারতের ত্রিপুরা , দক্ষিনে রাঙামাটির লংগদু , পূর্বে ভারতের মিজোরাম , পশ্চিমে খাগড়াছড়ির দীঘিনালা । যদিও সাজেক রাঙামাটি জেলায় অবস্থিত, তবে খাগড়াছড়ির দীঘিনালা থেকে সাজেক যাওয়াটাই উত্তম। রাঙামাটি থেকে কাপ্তাই হয়ে নৌপথে এসে বেশখানিকটা পথ পায়ে হেঁটে সাজেক আসা যায় ।

Sajek

খাগড়াছড়ি জেলা সদর থেকে সাজেকের দুরত্ব ৭০ কিলোমিটার এবং দীঘিনালা থেকে ৪৯ কিলোমিটার। সাজেক যেতে হলে আপনাকে খাগড়াছড়ি থেকে দীঘিনালা আর্মি ক্যাম্প হয়ে যেতে হবে। এর পর আপনি পেয়ে যাবেন ১০ নং বাঘাইহাট পুলিশ ও আর্মি ক্যাম্প, মূলত সেখান থেকেই আপনাকে সাজেক যাবার অনুমতি নিতে হবে । তারপর যাত্রা পথে পাবেন কাসালং ব্রিজ, টাইগার টিলা আর্মি পোস্ট ও মাসালং বাজার এবং এই বাজার পার হলে পরবে সাজেকের প্রথম গ্রাম রুইলুই পাড়া যার উচ্চতা ১৮০০ ফুট । এই পাড়ার আদি জনগোষ্ঠী হল লুসাই, এছাড়া এখানে পাংকুয়া ও ত্রিপুরা জনগোষ্ঠীরও বসবাস রয়েছে ।

Sajek-1

১৮৮৫ সালে এই পাড়া প্রতিষ্ঠিত হয়। রুইলুই পাড়া থেকে অল্প সময়ের মধ্যেই পৌঁছে যাবেন সাজেক । আপনাদের বলে রাখি সাজেকের বিজিবি ক্যাম্প কিন্তু বাংলাদেশের সর্বোচ্চ বিজিবি ক্যাম্প এবং এখানে হেলিপ্যাডও আছে । সাজেকের শেষ গ্রাম কংলক পাড়া এবং এটিও পাড়াটিও লুসাই জনগোষ্ঠী অধ্যুষিত। আপনি এই কংলক পাড়া থেকে ভারতের লুসাই পাহাড় দেখতে পাবেন। যেখান থেকে কর্ণফুলী নদী উৎপন্ন হয়েছে। বলে রাখা ভাল সাজেক বিজিবি ক্যাম্প এর পর আর কোন ক্যাম্প না থাকায় নিরাপত্তা জনিত কারনে কংলক পাড়ায় মাঝে মাঝে যাওয়ার অনুমতি দেয় না ।

Sajek2

ফেরার সময় হাজাছড়া ঝর্ণা , দীঘিনালা ঝুলন্ত ব্রিজ ও দীঘিনালা বনবিহার দেখে আসতে পারেন । একদিনে এই সব গুলো দেখতে হলে যত তারাতারি সম্ভব বেড়িয়ে পড়বেন । আরেকটি মজার বিষয় হল খাগড়াছড়ির সিস্টেম রেস্তোরায় ঐতিহ্যবাহী খাবার খেতে ভুলবেন না কিন্তু ।খাগড়াছড়ি থেকে চাঁন্দের গাড়ি রিজার্ভ নিয়ে একদিনে সাজেক ভ্যালী ঘুরে আসতে পারবেন । ভাড়া নিবে ৫০০০-৬০০০ টাকা । এক গাড়িতে ১৫ জন বসতে পারবেন । লোক কম হলে শহর থেকে সিএনজি নিয়েও যেতে পারবেন । ভাড়া ৩০০০ টাকার মতো নিবে । অথবা খাগড়াছড়ি শহর থেকে দীঘিনালা গিয়ে সাজেক যেতে পারবেন ।

Sajek-4

বাসে দীঘিনালা জন প্রতি ৪৫ টাকা এবং মোটর সাইকেলে জন প্রতি ভাড়া ১০০ টাকা । দীঘিনালা থেকে ১০০০-১২০০ টাকায় মোটর সাইকেল রিজার্ভ নিয়েও সাজেক ঘুরে আসতে পারবেন । ফেরার সময় অবশ্যই সন্ধ্যার আগে আপনাকে বাঘাইহাট আর্মি ক্যাম্প পার হতে হবে । তা না হলে অনেক প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হবে । ভুল করেও কিন্তু ক্যাম্পের ছবি তোলার চেষ্টা করবেন না, কেন না ক্যাম্পের ছবি তোলার কোন অনুমতি নেই।

 

 

 

 

 

Porjotonlipi Desk

1 comment