Porjotonlipi

বিনা ভিসাতেই হবে ভুটান ভ্রমণ

বিনা ভিসাতেই ভুটান ভ্রমণের ব্যাপারটা বেশ আকর্ষনীয় একটা ব্যাপার। ভারতের প্রতিবেশী দেশগুলির মধ্যে, ভুটান অন্যতম জনপ্রিয় পর্যটন গন্তব্য। পাহাড়ি এলাকায় সুন্দর দৃশ্য সহ একটি ছোট দেশ। এটি প্রতি বছর বিপুল সংখ্যক ভারতীয় পর্যটকদের আকর্ষণ করে। প্রায় সব ঋতুতে, বিশেষ করে শীতকালে, ভারতীয়রা থিম্পুর সৌন্দর্য উপভোগ করতে ড্রাগন ল্যান্ডে যান। বিদেশ ভ্রমণ কম খরচে করা যায়, এবং ভিসা অব্যাহতি ঝামেলাও কমায়।

বিনা ভিসাতেই ভারতীয় ও মালদ্বীপের নাগরিকদের ভুটান ভ্রমণ

দেশে পর্যটনকে আরও সমৃদ্ধ করার জন্য, ভুটান সরকার ভারত এবং মালদ্বীপের পর্যটকদের ভিসার প্রয়োজনীয়তা থেকে অব্যাহতি দিয়েছে। এবার ভুটান সরকারের সিদ্ধান্তকে লাভের মিশ্রণ হিসেবে নিল। ২০২৪ সালে দেশের অর্থনীতি পর্যটন শিল্প থেকে ভাল আয় পেয়েছে বলেছে জানিয়েছে ডেভেলপমেন্ট। সরকারি সূত্রে জানা গেছে, ২০২২/২৩ অর্থবছরে জিডিপি বেড়েছে ৪.৬ শতাংশ। এর অন্যতম কারণ হিসেবে দেশে পর্যটনের বিকাশকে ধরে নেয়া হচ্ছে। এই ধারা অব্যাহত থাকলে ২০২৩/২৪ অর্থবছরে জিডিপি প্রবৃদ্ধির হার ৪.৯ শতাংশ হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

সরকারী পরিসংখ্যান দেখায় যে এই বছরের ১ জানুয়ারি থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত ভুটানে দর্শনার্থীর সংখ্যা ছিল নজিরবিহীন। এই সময়ের মধ্যে ২৫,০০০ এরও বেশি পর্যটকদের মধ্যে ৬০ শতাংশ ভারত থেকে এসেছেন। রিপোর্ট অনুসারে, করোনাভাইরাস পরবর্তী পর্যটন শুরু হওয়ার পর থেকে মার্চ ২০২৪ হবে তৃতীয় মাস। শুধুমাত্র এই মাসেই ভুটানে ৫৭% পর্যটক ভারতে এসেছেন।

ভিসা ফ্রি করার সিদ্ধান্তকে এর অন্যতম কারণ হিসেবে দেখা হচ্ছে। বর্তমানে, পর্যটকরা মাত্র একটি ফি দিয়ে ভুটান যেতে পারেন। আর এ কারণেই ভুটানে ভারতীয় পর্যটকের সংখ্যা বাড়ছে। ভিসা-মুক্ত ভ্রমণ শুধুমাত্র ভারত এবং মালদ্বীপের পর্যটকদের জন্য প্রযোজ্য। বিশ্বের অন্যান্য পর্যটকদের যে সুযোগ-সুবিধা নেই।

চলতি বছরের বাকি মাসগুলোতে দেড় লাখের বেশি পর্যটক ভুটানে আসবে বলে আশা করা হচ্ছে। যদি তাই হয়, তবে এটি ২০২৩ সালে ভুটানে আসা পর্যটকদের সংখ্যার চেয়ে বেশি হবে। ভুটান ১৭ থেকে ২১ জুন দেশের পর্যটন শিল্পের ৫০তম বর্ষপূর্তি উদযাপনের জন্য একটি বাণিজ্য মেলার আয়োজন করেছে।

এদেশে পর্যটনের মান বাড়াতে শুধু ভিসা নয়, বাধ্যতামূলক ট্যুরিস্ট ভিসাও বাতিল করা হয়।

অপ্রত্যাশিত জরুরী অবস্থা, বিশেষ করে করোনার সময় মহামারী সংক্রান্ত চিকিৎসা খরচ কভার করার জন্য ভ্রমণ বীমা চালু করা হয়েছিল। পরে পর্যটকদের সহজ ও সুন্দর ভ্রমণ নিশ্চিত করতে তা সরিয়ে ফেলা হয়।

 

সূত্রঃ এই সময়

 

Porjotonlipi Desk

Add comment

ফেইসবুকে আমরা

Advertisement