Porjotonlipi

একদিনেই নুহাশ পল্লী ভ্রমণ

নুহাশ পল্লী ঢাকার অদূরে গাজীপুরে অবস্থিত। ঢাকার কোলাহল ও কর্মব্যস্ততা থেকে চলে আসে একঘেয়েমি। তাই ইচ্ছে করে শান্ত প্রাকৃতিক পরিবেশে কিছুটা সময় কাটাতে। কিন্তু ব্যস্ততার মাঝে এই সময় বের করাটা খুব কঠিন ব্যাপার। তবে একটু পরিকল্পনা করে সাপ্তাহিক ছুটির দিনে ঢাকার অদূরে ঘুরে আসতে পারেন। নুহাশ পল্লী ঠিক তেমন একটি জায়গা।

হুমায়ূন আহমেদের স্মৃতিবিজড়িত নুহাশ পল্লী

প্রয়াত প্রখ্যাত কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের এক নান্দনিক সৃষ্টি অপরূপ নুহাশ পল্লী। এই জায়গাটি পারিবারিক বিনোদন কেন্দ্র এবং শুটিংস্পট হিসেবে পরিচিত। নুহাশ পল্লী গাজীপুর জেলা সদর থেকে ২৫ কিলোমিটার দূরে পিরুজালী গ্রামে অবস্থিত। প্রায় ৪০ বিঘা আয়তনের এই জায়গাটি হুমায়ূন আহমেদ তার ছেলে নুহাশের নামে তৈরি করেছিলেন।

সহজে এবং দ্রুত ভ্রমণের জন্য ঢাকার কাছের অন্যতম সেরা স্থান হল নুহাশ পল্লী। এই গ্রাম্য বাগানবাড়িটি কিংবদন্তি লেখক হুমায়ূন আহমেদ নির্মাণ করেছিলেন। আপনি আপনার বন্ধু এবং পরিবারের সঙ্গে এখানে আসতে পারেন।

হুমায়ূন আহমেদ এখানে তার সব কল্পনাকে বাস্তবে পরিণত করেছেন। গল্পের প্রতিটি উপাদানের সঙ্গে বাগানবাড়ির প্রতিটি বস্তুকে পাঠক সহজেই যুক্ত করতে পারেন। এখানে বৃষ্টি বিলাস ও ভূত বিলাস নামে বাড়ি রয়েছে। রয়েছে ট্রি হাউস ও বিভিন্ন ভাস্কর্য। এই বাড়িটি একটি বাগানে অবস্থিত যেখানে প্রায় ৩০০টি বিভিন্ন প্রজাতির গাছ রয়েছে। এখানে দেখতে পাবেন পদ্ম পুকুর, মৎস্য কন্যা এবং প্রাগৈতিহাসিক প্রাণী। আর হুমায়ূন আহমেদের সমাধিস্থল নুহাশ পল্লীর লিচু তলায়।

নুহাশ পল্লী যাবার ব্যবস্থা ও সম্ভাব্য খরচ

নুহাশ পল্লীতে যেতে প্রথমে আপনাকে যেতে হবে গাজীপুরের হোতাপাড়া বাসস্ট্যান্ডে। ঢাকা থেকে প্রভাতী বনশ্রীসহ বেশ কয়েকটি বাস এই রুটে চলাচল করে।

ঢাকা থেকে হোতাপাড়া পর্যন্ত বাসের ভাড়া ৫০ টাকা থেকে ৮০ টাকা পর্যন্ত। তবে আপনি কোথা থেকে বাসে উঠছেন তার উপর ভাড়া নির্ভর করে।

হোতাপাড়া বাসস্ট্যান্ড থেকে টেম্পো, রিকশা বা সিএনজি করে সহজেই নুহাশ পল্লী যাওয়া যায়। টেম্পো ভাড়া ৪০ টাকা থেকে ৫০ টাকা হতে পারে। রিকশা নিলে খরচ হতে পারে ৫০ থেকে ৬০ টাকা। তবে সিএনজি নিলে ভাড়া পড়বে ১২০ থেকে ১৫০ টাকা।

নুহাশ পল্লী যেতে হলে পূর্ব অনুমতি নিয়ে চিন্তিত হবার কোন কারন নেই। যে কেউ ২০০ টাকা এন্ট্রি ফি প্রদান করে সেখানে প্রবেশ করতে পারে। ১০ বছরের কম বয়সী শিশুদের বিনামূল্যে প্রবেশের সুযোগ রয়েছে। আপনি যদি নিজের গাড়ি ব্যবহার করেন তবে বিনামূল্যে গাড়ি পার্কিং করতে পারবেন।

বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্ক আরেকটি জনপ্রিয় আকর্ষণ যা নুহাশ পল্লী থেকে সহজেই যাওয়া যায়। ঢাকা থেকে একদিনেই ঘুরে আসতে পারেন এই দুই জায়গায়। তবে পুরো সাফারি পার্ক দেখতে অনেক সময় লাগবে। অতএব, এক দিনে দুই জায়গা ঘুরে দেখা কঠিন হতে পারে।

 

Porjotonlipi Desk

Add comment

ফেইসবুকে আমরা

Advertisement