আমাদের আজকের অভিযান চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার শাহবাজপুর ইউনিয়নে, যেখানে অবস্থিত রয়েছে ঐতিহাসিক ছোট সোনা মসজিদ। এই মসজিদ ব্যাপকভাবে বাংলাদেশের ঐতিহাসিক তাৎপর্য বহন করে।

Choto-Shona-Mosque1

চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে শাহবাজপুর ইউনিয়নের দূরত্ব প্রায় ৩৫ কি.মি. । বাস অথবা সিএনজি-তে চরেই আপনি সেখানে পৌঁছে যেতে পারবেন। সময় লাগে প্রায় ৪৫ মি. থেকে ১ ঘন্টা ।
ছোট সোনামসজিদ ‘সুলতানি স্থাপত্যের রত্ন’ বলে আখ্যাত। এটি বাংলার রাজধানী গৌড়-লখনৌতির ফিরোজপুর কোয়াটার্স এর তাহখানা কমপ্লেক্স থেকে অর্ধ কিলোমিটার দক্ষিণ-পূর্বে এবং কোতোয়ালী দরওয়াজা থেকে প্রায় তিন কিলোমিটার দক্ষিণে অবস্থিত। বিশাল এক দিঘির দক্ষিণপাড়ের পশ্চিম অংশ জুড়ে এর অবস্থান।

Choto-Shona-Mosque2

মসজিদের কিছু দূর পশ্চিমে বাংলাদেশ সরকারের প্রত্নতত্ত্ব অধিপ্তর কর্তৃক কয়েক বছর পূর্বে নির্মিত একটি আধুনিক দ্বিতল গেষ্ট হাউস রয়েছে। গেষ্ট হাউস ও মসজিদের মধ্য দিয়ে উত্তর-দক্ষিণে একটি আধুনিক রাস্তা চলে গেছে। মনে হয় রাস্তাটি পুরনো আমলের এবং একসময় এটি কোতোয়ালী দরওয়াজা হয়ে দক্ষিণের শহরতলীর সঙ্গে গৌড়-লখনৌতির মূল শহরের সংযোগ স্থাপন করেছিল।

Choto-Shona-Mosque3
প্রধান প্রবেশ পথের উপরিভাগে স্থাপিত একটি শিলালিপি অনুযায়ী জনৈক মজলিস-ই-মাজালিস মজলিস মনসুর ওয়ালী মুহম্মদ বিন আলী কর্তৃক মসজিদটি নির্মিত হয়। শিলালিপিতে নির্মানের সঠিক তারিখ সম্বলিত অক্ষরগুলি মুছে গেছে। তবে এতে সুলতান আলাউদ্দিন হোসেন শাহ এর নামের উল্লেখ থেকে এটা সুস্পষ্ট যে, মসজিদটি তার রাজত্বকালের (১৪৯৪-১৫১৯) কোন এক সময় নির্মিত। বলে রাখা ভালো, বাংলাদেশের পুরাতন বিশ টাকার নোটে এই ঐতিহাসিক মসজিদটির ছবি স্থান পেয়েছিল।

Share.

Leave A Reply